বাঘের ঘরে ঘোগ

Written by  সেলিম মোরশেদ
  • প্রকাশ: ২০০৮
  • আই এস বি এন: 984-300-001414-8
  • পৃষ্ঠা: ৭১
  • বাঁধাই: বোর্ড বাঁধাই
  • মূল্য: ১০০

একদা, তিরিশ বছর আগে, সর্বস্বখোয়া হেমাঙ্গিনীর শরীর-মন-যৌনতার জানত্মব ড়্গুধার মানচিত্র কাটা সাপের মু- আমাদের গ্রাহ্যে এনে, গল্পলেখক সেলিম মোরশেদ স্বয়ং এবং তাঁর অনভসত্ম পাঠকের অনুভূতিকে তছনছ করে এক অনির্ণিত পথের নিঃসঙ্গ অভিযাত্রিক হিসেবে যাত্রা শুরু করেছিলেন।

সেই থেকে ব্যক্তি এবং মানুষ হিসেবে সচেতন সেলিম মোরশেদ-এর চরিত্রসমূহও সচেতন ক্রিয়ার ক্রমাগত অভিব্যক্তি হতে দেখা গেছে।

তাঁকে পাঠ করার অর্থ জীবন ও জীবনের অতলস্পর্শী প্রশ্নসমূহের নিরনত্মর মুখোমুখি দাঁড়ানো-সেখানে ব্যক্তি আচ্ছন্ন তাঁর শ্রেণি সমাজ সংস্কৃতি মূল্যবোধ ইতিহাস ও ঐতিহ্যচেতনা দিয়ে-যা যুগপৎ স্ববিরোধী।

ফলত সংশয় এবং ড়্গতবিড়্গত হওয়া তাঁর এবং চরিত্রসমূহের মৌলিক নিয়তি।

এই নিয়তিপ্রাপ্ত চরিত্রসমূহের উন্মোচন বাংলা কথাসাহিত্যে সেলিম মোরশেদকে (শুয়োরের মত গোঁ ধরে যিনি প্রায় একাই এদেশে ছোটকাগজের অভিযাত্রাকে একটি আন্দোলনে রূপ দিতে চলেছেন) স্বতন্ত্র অভিদায় স্বনাক্ত করবে নিঃসন্দেহে।

তাঁর কান্নাঘর, সথিচান, রক্তে যত চিহ্ন গল্পগুলো সমকালীন বাংলা গল্পের সার্বিক প্রবণতাসমেত আধুনিক বাংলা গল্পের যুগজয়ী উদাহরণ হয়ে উঠেছে।

অতঃপর লড়্গণীয়, ব্যক্তিমানুষকে খুঁজতে সেলিম মোরশেদ তাঁর মাইক্রোস্কোপের লেন্সের শক্তি যতই বাড়াচ্ছেন, মানুষের আত্মাকে অনু পরমানুতে ভেঙে ফেলছেন-তারা ভাবছে চিনত্মা করছে প্রশ্ন করছে এবং উত্তরও দিচ্ছে নিজেরাই, এই ক্রমাগত প্রশ্নোত্তরে চরিত্রগুলো মানবিক গুরম্নত্ব হারিয়ে ফেলেছে, তাদের আশপাশের উপাদানগুলো এত শক্তিশালী যে মানুষের অনত্মর্গত আত্মিক উপাদানগুলোর গুরম্নত্ব ঝন ঝন করে ভেঙে পড়ছে। ব্যক্তিমানুষের স্বরূপ অন্বেষা শেষ হচ্ছে যেন-বা সম্ভাবনাহীন শূন্যতায়।

আমাদের সাধারণ পাঠ-অভিজ্ঞতাকে পাল্টে দিয়ে গ্রন্থভুক্ত গল্পগুলো দার্শানিক এই অভিপ্রায়লোকে সঙ্গে নিয়ে প্রবলভাবে বেড়ে উঠেছে।

কথাসাহিত্যে সেলিম মোরশেদের এই অভিযাত্রা আজ আর কোন প্রশ্নসাপেড়্গ ঘটনা নয়।

-শহিদুল আলম , কথাসাহিত্যিক।

 
Ulkhar