Home নির্বাচিত লেখা তিনটি কবিতা । নাভিল মানদার।। কবিতা

তিনটি কবিতা । নাভিল মানদার।। কবিতা

তিনটি কবিতা  ।  নাভিল মানদার।। কবিতা
0
0

বই : ভূ-বারান্দা – নাভিল মানদার / কবিতা / ২০১৭, উলুখড় ।।

 

তারাগঞ্জ

তারাগঞ্জ বাজারের কোল ঘেঁষে

একটি দোতলা বাড়ি ঠাঁই দাঁড়িয়ে অপেক্ষমাণ;

বহুবছর তোমার বোতাম খোলার শব্দ

এই বাড়ির সীমান্তে প্রবেশ করেনি

খোলা জানালার মুখ বরাবর

ঢুকে পড়েছে রাস্তার হাওয়া বাতাশ

আর বেলুনের মতো ফুলে উঠেছিলো

প্রতিটি ঘরের পেট

প্রতিদিন যে সিঁড়িটি উঠে গেছে দোতলায়

সে তোমার বিগত পদছাপকে

জমা রেখেছে প্রচুর; –  তারাদের হাতে হাতে

 

তারাগঞ্জ বাজারের সব দোকানেরা

কাঁধে কাঁধ রেখে নীরব বন্ধুত্বে বহমান

যদিও এখানে সকল দোকানে

বোয়েমভর্তি আকাশ আছে

আছে তারার বিস্তার

আমার মেঘলা দাঁতে সচিত্র প্রতিবেদন

তারাগঞ্জ বাজারের কোল ঘেঁষে

সুদীর্ঘ সেতুর উদ্বোধন

বোতাম পেরিয়ে তোমার ভূ-ত্বকে তারা

 

আরোগ্যতলা

তোমার খাটের তলদেশে

যে হাসপাতাল বসবাস করে

মেঘা আকাশের সূর্য এসে ভর্তি হলো;

জানি পেটেব্যথা পৃথিবীর আদি রোগ

যেহেতু মেঘের পেট ফেটে

ভিজে যায় মৃত্তিকার মাটি

তবু একদিন খাটের উপর

তোমার ঘুমের চোখগুলো জোড়া দিলে

পেয়ে যাবো শুল্কমুক্ত শীতের ঘনকুয়াশা

 

আরো আরো বুড়ো মেঘ

লাঠি হাতে হেঁটে গেলো

সেবিকার নিদ্রাহীন ঘড়ির কাঁটায়

 

আমিও নিছক ছদ্মবেশী রুগী

ভর্তি হোয়েছি খাটের তলদেশে

 

পাখির খালি পা

সব আলো ও অন্ধকার মিশিয়ে

হেঁটে যাচ্ছে তোমার জুতোর কান্না

পথের দু’পাশে শোনা যাচ্ছে

সূর্য ওঠার প্রতিটি শব্দ

জুতোর ভেতর রোদ্র আছে

আছে ভেজা কাপড় শুকিয়ে দেবার মিনতি

অনেক অনেক ঝরাপাতার পতন দৃশ্য

তোমার জুতোর দিকে ধাবমান

 

দুঃখী বাতাশের ধাক্কা খেয়ে

এইমাত্র যে শালিক ছানা

খালি পায়ে উড়ে গেলো

তার নীরবতা আছে

তোমার জুতোর মাপে বড়ো হবে ব’লে

শালিকের সুদীর্ঘ অশ্রুরা

রাত্রিদিন ধুয়ে দিচ্ছে

ছানার খালি পা